Social Safety Net


অর্থনীতি : দরিদ্রের পাওনা আত্মসাত্ করে দারিদ্র্য বিমোচন হবে না : ২০১২-১৩ সালের জাতীয় বাজেটে দারিদ্র্য বিমোচনের লক্ষ্যে সামাজিক নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ২২,৭৫০ কোটি টাকার বরাদ্দ রাখা হয়েছে। খাতগুলো হলো ভিক্ষাবৃত্তির অবসান ১০ কোটি, মাতৃত্বকালীন ভাতা ৪২.৫ কোটি, বয়স্ক ভাতা ৮৯১ কোটি, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ৩৬০ কোটি, বিধবা ভাতা ৩৩১ কোটি, একটি বাড়ি একটি খামার ৬৫০ কোটি, অতি দরিদ্রদের কর্মসংস্থান ১২০০ কোটি এবং আরও বহু খাত যেমন এতিম, হিজরা, ভিজিডি, ভিজএফ, কাবিখা ইত্যাদিসহ মোট বরাদ্দ রাখা হয়েছে ২২,৭৫০ কোটি টাকা। এ বিপুল অংকের বরাদ্দের জন্য সরকারকে সাধুবাদ জানাচ্ছি। এ অর্থ মোট বাজেটের ১১.৮৬ শতাংশ । এটাকে বিরাট অংক বলা যায়। এজন্য যে সত্যিকারভাবে যদি এ অর্থ ১ কোটি হতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে নগদে বিতরণ করা হয় তাহলে পরিবার প্রতি ২২,৭৫০ পাবে যা তাদের দারিদ্র্য অনেকটা কমাবে এবং ৫ বছরের মধ্যে দারিদ্র্য অনেক নিচে নেমে যেতো। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য হলো দুর্নীতির কবলে পড়ে প্রতিটি উন্নয়ন ও সামাজিক উদ্যোগ মুখ থুবড়ে পড়ে। অনেক বয়স্করা বয়স্ক ভাতার মুখ দেখে না, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা পায় না, বিধাব/স্বামী-পরিত্যক্তকে বখরা/ঘুষ দিয়ে ভাতা নিতে হয়, কাজ না করিয়েই কাবিখার গম/চাল আত্মসাত্ করা হয়, একটি বাড়ি একটি খামার ও কর্মসংস্থান প্রকল্পে হতদরিদ্রকে না দিয়ে বেছে বছে অধিকাংশ ক্ষেত্রে দলীয় অবস্থাপন্ন লোকদেরকে সুবিধা দেয়া হয়।

গৃহহীনে গৃহ দিতে সাড়ে ৩ কোটি টাকা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের (10 September 2012) : সুবিধাবঞ্চিত মানুষের গৃহায়ন সমস্যা দূর করতে বাংলাদেশ ব্যাংকের গৃহায়ন তহবিল থেকে ৪০ এনজিওকে সাড়ে তিন কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। ১৯৯৮ সালে এই তহবিলটি (গৃহায়ন) গঠনের পর এ পর্যন্ত দেশের ৬৪টি জেলার ৪৫০টি উপজেলায় এর ঋণ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। গভর্নর বলেন, ৪৫২টি এনজিও’র মাধ্যমে এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছিল। এ বছর নতুন করে আরো ৭১টি এনজিওকে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। ফলে এখন অংশীদার এনজিও’র সংখ্যা দাঁড়াবে ৫২৩টি। চলতি বছরের অগাস্টে এ তহবিলের আওতায় এনজিওগুলোর অনুকূলে ১৩৫ কোটি টাকা বিতরণ করা হয়েছে। এই ঋণের মাধ্যমে প্রায় ৫৪ হাজার গৃহ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব হয়েছে। ঋণের ১৬১ কোটি টাকা এই পর্যন্ত সরকারের কাছে ফেরত এসেছে বলেও জানান গভর্নর। এই তহবিলের আকার এখন ২৭৫ কোটি টাকার বেশি। এই ঋণ প্রসঙ্গে গভর্নর আরো বলেন, “গৃহায়ন তহবিল একটি ঘূর্ণায়মান পদ্ধতিতে (রিভলভিং ফান্ড) পরিচালিত। এ তহবিল হতে গৃহীত ঋণ চক্রাকারে পরিশোধিত হলেই এর ঋণ কার্যক্রম সচল থাকবে; সম্ভব হবে অধিক সংখ্যক দরিদ্র-পীড়িত অসহায় মানুষকে এই ঋণ সুবিধার আওতায় আনা।” এনজিও কর্মকর্তাদের উদ্দেশে আতিউর বলেন, “স্বল্পসুদে (৫ শতাংশ) ও দীর্ঘমেয়াদে (১০ বছরে) পরিশোধযোগ্য এ ঋণ যাতে সঠিকভাবে ব্যবহৃত হয় এবং উপকারভোগীগণ যেন খেলাপি না হয়ে পড়েন, সে জন্যে আপনারা কার্যকর ভূমিকা রাখবেন।”

দারিদ্র্যের হার ১৫ শতাংশে নামানোর লক্ষ্য (10 September 2012): দেশে বর্তমানে ৩১ দশমিক ৫০ শতাংশ মানুষ দারিদ্র্য সীমার নিচে বাস করছে | সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশে দারিদ্র্যের হার ৩১ দশমিক ৫০ শতাংশ থেকে ২০১৩ সালের মধ্যে ২৫ শতাংশে নামিয়ে আনার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সরকার। এই হার ২০২১ সালের মধ্যে নামিয়ে আনা হবে ১৫ শতাংশে। বর্তমানে সারা দেশে ৯৯টি সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী কর্মসূচি চলছে। খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, কৃষি, স্থানীয় সরকার বিভাগ, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ, মহিলা ও শিশু বিষয়ক, সমাজকল্যাণ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা, শিক্ষা, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক, স্বাস্থ্য ও ভূমি মন্ত্রণালয়সহ ২১টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ এসব কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। এসব কর্মসূচির অধীনে মোট ২৪ কোটি ৭৪ লাখ মানুষ সুবিধা পাবে যে সংখ্যা দেশের বর্তমান জনসংখ্যার চেয়ে বেশি। অবশ্য প্রকৃত সুবিধাভোগীর সংখ্যা ১২ কোটির বেশি। গত ২০১০-১১ অর্থবছরে দেশের মোট জাতীয় বাজেট ছিল এক লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচিতে মোট বরাদ্দ ছিল প্রায় ২২ হাজার ৩৪৯ কোটি ২৫ লাখ টাকা। বরাদ্দ করা অর্থের মধ্যে ওই বছর মোট ব্যয় হয় ১৯ হাজার ৩১০ কোটি ৬৮ লাখ টাকা, যা জাতীয় বাজেটের ১৪ দশমিক ৮৫ শতাংশ। সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি বাস্তবায়নের ফলে সরাসরি উপকৃতদের মাথাপিছু আয়ের পরিমাণ ১৪ দশমিক ৫০ শতাংশ থেকে ২৮ শতাংশ বেড়েছে। এসব কর্মসূচিতে সরাসরি জড়িত নন, এমন ব্যক্তিদের আয়ও বেড়েছে প্রায় আট শতাংশ।

Social Safety Net

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s